স্কুলের অনুষ্ঠানে অসাধারণ ড্যান্স পারফরম্যান্স করে সকলকে মুগ্ধ করলো ছাত্র শিক্ষিকার জুটি, ঝড়ের গতিতে ভিডিও ভাইরাল

দেশের প্রথম প্রধানমন্ত্রী জওহর লাল নেহরুর জন্মদিনকে শিশু দিবস হিসেবে পালন করা হয়। ১৮৮৯ সালের নভেম্বর মাসের ১৪ তারিখ নেহরুর জন্মদিন। পরবর্তী সময়ে তিনিই হন ভারতের প্রথম প্রধানমন্ত্রী। শিশুদের প্রতি তাঁর স্নেহ ও ভালোবাসার কথা সর্বজন বিদিত।

তাই তাঁর কৃতিত্ব স্মরণ করে তাঁরই জন্ম দিবসে পালিত হয় শিশু দিবস। শিশু দিবস উপলক্ষে শিশুদের চকোলেট থেকে শুরু কর নানা রকমের উপহার দেওয়া হয়। তাছাড়া স্কুলে স্কুলে নানা ধরনের অনুষ্ঠানও করা হয়। সেই অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ করেন শিক্ষক-শিক্ষিকা এবং ছাত্র ছাত্রীরা।

শিশুই দেশের ভবিষ্যত,নবজাগরণে শিশুরাই আগামীর আলো। শিশুদের আলোর পথে উজ্জীবিত করতে এবং তাদের অধিকার, সুরক্ষা ও শিক্ষার প্রতি জোর দিতে এই দিনটিকে বিশেষভাবে পালন করা হয়। শিশুদের প্রতি জহরলাল নেহেরুর গভীর স্নেহ ও ভালোবাসার কথা আমরা প্রত্যেকেই জানি।

তাঁর শিশুদের প্রতি ছিল অদম্য স্নেহ ও ভালবাসা। রাষ্ট্রসংঘ ১৯৫৪ সালের ২০ নভেম্বর শিশু দিবস পালনের জন্যে ঘোষণা করেছিল। সেই ঘোষণা অনুযায়ী ভারতেও পণ্ডিত জওহরলাল নেহরুর মৃত্যুর আগে পর্যন্ত ২০ নভেম্বর শিশু দিবস পালিত হত।

১৯৬৪ সালে নেহেরুর মৃত্যুর পর তাঁকে সম্মানিত করতে ১৪ নভেম্বর ভারতের শিশু দিবস পালিত হয়ে আসছে। তবে বর্তমানে এই শিশু দিবসের দিনটি একটু অন্যরকম ভাবে পালন করে আসছেন ছাত্র-ছাত্রী থেকে শুরু করে শিক্ষক শিক্ষিকারা। শিক্ষক দিবসের সঙ্গে অঙ্গাঙ্গিভাবে যুক্ত হয়েছে আধুনিকতার একটা ছাপ।

শিক্ষার আসল উদ্দেশ্য হল স্বাধীন এবং সৃষ্টিশীল মানুষ গঠন। শিক্ষা হল যে কোনো জাতির মেরুদন্ড। অন্যদিকে শিশুরা হলো জাতির ভবিষ্যৎ। তাই প্রত্যহ পঠন-পাঠনের পাশাপাশি শিশু দিবসের এই বিশেষ দিনটি নাচের গানে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান প্রাঙ্গন যেন নতুন রূপে মেতে ওঠে।

নাচগানের এই অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ করেন ছাত্র ছাত্রীরা এবং শিক্ষক-শিক্ষিকারা। এবার শিশু দিবসের পুণ্য লগ্নে স্টেজে উঠে ডান্স পারফর্ম করলেন স্কুলের শিক্ষক এবং শিক্ষিকা। তাদের সেই নাচের ভিডিও ভাইরাল হয়ে গিয়েছে সোশ্যাল মিডিয়া জুড়ে। একটি ভিডিওতে দেখা গিয়েছে যে,

অডিটোরিয়ামের উপরের ডান্স পারফর্ম করছেন একজন শিক্ষক এবং শিক্ষিকা।ব্যাকগ্রাউন্ড রয়েছে একটি ব্ল্যাকবোর্ড। সেখানে রেখা রয়েছে শিক্ষক দিবসের বিভিন্ন বিষয়। শিক্ষকের পরনে ব্ল্যাক শার্ট ব্ল্যাক ট্রাউজার্স, আর শিক্ষিকা করেছেন লাল রঙের একটি ডিজাইনার শাড়ি।

স্টেজের উপরে উঠে একটি পুরনো দিনের হিন্দি গানের সঙ্গে অসাধারণ ডান্স পারফর্ম করলেন দুই শিক্ষক শিক্ষিকা। শিক্ষক-শিক্ষিকার এই নাচের দৃশ্য উপভোগ করছিল আশেপাশে শিক্ষক দিবসের অনুষ্ঠানে হাজির হওয়া ছাত্র ছাত্রীরা। সোশ্যাল মিডিয়ায় এমন একটি ভিডিও রীতিমতো ভাইরাল হয়ে গিয়েছে।

পূর্ণিমা মাঙ্গার নামক এক মহিলা নিজের ইউটিউব চ্যানেল থেকে সাম্প্রতিক এমনই একটি ভিডিও পোস্ট করেছেন। শিক্ষক-শিক্ষিকার অসাধারণ ডান্স পারফর্ম দেখা গিয়েছে ভিডিওটিতে।

বর্তমান ইউটিউবে ভিডিওটি দর্শক সংখ্যা সাড়ে সাত হাজার। একই সঙ্গে প্রচুর সংখ্যক লাইক আর কমেন্ট দেখা গিয়েছে ভিডিওটিতে। কিন্তু, আজও দেশের বিভিন্ন কোনায় অবহেলিত থেকে যাচ্ছে শিশুরা। শিশু শ্রমিক হিসেবে ব্যবহার করা হচ্ছে তাদের।

হাতে বইয়ের পরিবর্তে তুলে দেওয়া হচ্ছে নানান কাজের সামগ্রী। তাই, শিশু দিবসে প্রত্যেক শিশুকে স্কুল মুখি করার অঙ্গীকার গ্রহণ করতে হবে। শিক্ষার আলোয় উজ্বল করতে হবে তাদের ভবিষ্যত, দেখাতে হবে সঠিক পথ, তবেই সফল হবে শিশু দিবস পালন।