“বলিউডকে শেষ করে দেওয়ার চ’ক্রান্ত বরদাস্ত করবো না” গর্জে উঠলেন মুখ্যমন্ত্রী উদ্ধাব ঠাকরে

সুশান্তের প্র’য়ায়নের পর থেকে অনেকেই বলিউডের অন্ধকার দিক সামনে এনেছে। উদ্ভব ঠাকরে শুরুর থেকে বলীদের পাশে থেকেছেন। সম্প্রতি ঠাকরে স্পষ্ট ভাবে জানিয়ে দিলেন, ‘বলিউডকে শেষ করে দেওয়ার চ’ক্রান্ত বরদাস্ত করব না’।

ঠাকরে জানিয়েছেন, যে বা যাঁরা চেষ্টা করছেন হিন্দি চলচ্চিত্র জগতকে শেষ করে দিতে কিংবা মুম্বই থেকে একে সরিয়ে নিয়ে যেতে তাদের উদ্দেশ্যকে কোনওভাবেই মেনে নেওয়া হবে না এমনকি সফল হতেও দেওয়া হবে না। তিনি মনে করিয়ে দেন যে, মুম্বই দেশের অর্থনৈতিক রাজধানীর পাশাপাশি বিনোদন রাজধানীও বটে।

ঠাকরে আরও বলেন, ‘সারা দুনিয়ায় বলিউডের কদর রয়েছে। এই ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রি অসংখ্য মানুষের রোজগারের জায়গা। গত কয়েক মাসে নানা ভাবে কিছু স্তর থেকে ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রিকে কালিমালিপ্ত করার চেষ্টা করা চলছে।আর এটা খুবই কষ্টদায়ক।’

উদ্ভব ঠাকরে সিনেমা এবং মাল্টিপ্লেক্স মালিকদের সঙ্গে বৈঠক করেছেন। রাজ্যের সংস্কৃতি দফতর একটি স্ট্যান্ডার্ড অপারেটিং প্রসিডিওর তৈরি করেছে, যার ভিত্তিতেই প্রায় ৬ মাস পরে মহারাষ্ট্রের সিনেমা হল খোলার প্রস্তুতি নেওয়া হবে।

ঠাকরে মনে করেন, রাজ্যের অর্থনীতি ফের চাঙ্গা করার জন্য এক গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবে বিনোদন ইন্ডাস্ট্রি। তাই তিনি জানিয়েছেন এসওপি তৈরি হলেই সিনেমা হল খুলে দেওয়া হবে।

তবে তিনি জানিয়েছেন যে যেহেতু সিনেমা হলে প্রায় ২ ঘন্টা একটি বদ্ধ জায়গায় অনেক মানুষ একসঙ্গে থাকেন। তাই সিনেমাহলে সম্পূর্ণ পরিচ্ছন্নতা, স্যানিটাইজেশন এবং সামাজিক দূরত্ববিধি মেনে চলার দিকে কড়া নজর রাখা হবে। তিনি একটি নিয়ম বলেছেন যে, মোট আসনের ৫০ শতাংশের বেশি দর্শক একসাথে সিনেমা হলের মধ্যে থাকতে পারবে না।

কিছুদিন আগেই যোগী সরকার ঘোষণা করেছে উত্তরপ্রদেশের নয়ডায় বিশাল আয়তনের একটি ফিল্ম সিটি তৈরির করা হবে বলে। এই ফিল্মসিটির জন্য চলচ্চিত্র নির্মাতা ও পরিচালকদের পক্ষে লোকেশন বাছাইয়ে আরও সুবিধে হবে বলেই তিনি জানিয়েছেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here