এবার শেষ বারের মতো সিদ্ধার্থকে দেখে বললেন, সিদ্ধার্থ তোমার ছুটি, বুক ফাটা কান্নায় ভেঙে পড়লেন প্রেমিকা, রইলো ভাইরাল ভিডিও

সিদ্ধার্থ শুক্লার আকস্মিক মৃ”ত্যুর খবর যেনো এখনো অবিশ্বাস্য সকলের কাছে। বৃহস্পতিবার সকালে অভিনেতা সিদ্ধার্থ শুক্লার এই আকস্মিক মৃ”ত্যুর খবর শুনে মাথায় আকাশ ভেঙ্গে পড়েছিল তাঁর অনুরাগীদের। মাত্র ৪০ বছর বয়সে এভাবে চলে যাবেন তিনি, তা মেনে নিতে পারছেন না কেউ।

বিপর্যস্ত আফগানিস্তান নিয়ে কয়েকদিন আগেই ইনস্টাগ্রামে নিজের প্রতিক্রিয়া জানিয়েছিলেন অভিনেতা। সেই অভিনেতা হঠাৎ করে এভাবে চলে গেলেন! হৃ”দরো”গে আ”ক্রান্ত হয়ে প্র”য়াত অভিনেতা সিদ্ধার্থ শুক্লা।

একজন প্রতিভাবান অভিনেতার সাথে সাথে জনপ্রিয় রিয়ালিটি শো বিগ বস সিজেন ১৩ এর বিজেতা ছিলেন এই মানুষটি। শেহনাজ গিলের সাথে বিগ বসের ঘরেই প্রথম পরিচয় হয় সিদ্ধার্থের। তিনিও একজন প্রতিভাবান অভিনেত্রী এবং বিগ বস সিজেন ১৩ এর প্রতিযোগী ছিলেন।

দিনের পর দিন বিগ বসের ঘরে থাকতে থাকতে এক সময় সিদ্ধার্থ আর শেহনাজ একে অপরকে বেশ ভালই পছন্দ করতে শুরু করে। এমন একজন সুস্থ সবল, ফিটনেস প্রিয় মানুষটা এভাবে হঠাৎ মৃত্যুর কোলে ঢলে পরবে তা দুর্ভাবনার অতীত।

সিদ্ধার্থ তোমার ছুটি! ভালোবাসতেতো অনেকেই পারে, কিন্তু ভালবাসা শেখাতে পারে কত জন! সিদ্ধার্থের মত এক কঠিন হৃদয়ের মানুষকে এক খামখেয়ালি শেহনাজ একেবারে বদলে দিয়েছিলেন। সিদ্ধার্থ নিজের হাতে শেহনাজের খেয়াল রাখতেন এবং শেহনাজ রাগ করলে সিদ্ধার্থ তার রাগ ভাঙাতেন।

এছাড়াও সিদ্ধার্থ শেহনাজকে ভালোবেসে খাইয়ে দিতেন এবং সমস্ত ঝগড়া ঝামেলার পর তারা একসাথে বসে আকাশের তারা দেখতেন। সিদ্ধার্থের মত এক কঠিন হৃদয়ের মানুষ শেহনাজের মত এক খামখেয়ালি মেয়ের কাছে একেবারেই শিশু ছিলেন। সবই দেখেছেন শেহনাজের কাছে সিদ্ধার্থের মান অভিমান এবং ভালোবাসা।

সিডনাজ শিখিয়েছে ভালোবাসায় কোনো ইগো রাখতে নেই, দিনে যতই ঝগড়া হোক না কেনো রাতে সেই মানুষটার জন্যেই বালিশ পেতে অপেক্ষা করতে হয় এবং তার বুকেই নিশ্চিন্তে ঘুমিয়ে পড়তে হয়। নতুন ভাবে ভালোবাসতে শিখিয়ে ছিল সিডনাজের এই জুটি।

কিন্তু সিদ্ধার্থের চলে যাওয়াতে এই জুটির ভাঙন হল। এবার শুধুই সিদ্ধার্থের স্মৃতি জড়িয়ে বাঁচতে হবে শেহনাজকে। টেলিদুনিয়ার জনপ্রিয় এই অভিনেতার আকষ্মিক মৃত্যুতে স্বভাবতই শোকের আবহাওয়া বলিউড জুড়ে। গতকাল সিদ্ধার্থের শেষকৃত্যে উপস্থিত ছিলেন তাঁর সতীর্থরা।

এলোমোলো চুল, কান্নাভেজা চোখে ওশিওয়াড়া শ্মশানে এসেছিলেন শেহনাজ। পরস্পর সম্পর্কে থাকার কথা খোলাখুলি স্বীকার করেননি ঠিকই। কিন্তু শেহনাজের বিধ্বস্ত চেহারা বলে দিচ্ছে তিনি কতটা ভালবাসতেন সিদ্ধার্থকে।