রান্না ঘরে ওভেনের নীচ থেকে হটাৎ ফোঁস করে বেরিয়ে আসল বিষধর কোবরা, ঘটল বিপত্তি, ভিডিও ভাইরাল

ঠাকুর ঘরের মধ্যে একটি সাপ ঢুকে যাওয়ায় চাঞ্চল্য ছড়ালো প্রত্যন্ত গ্রামে। সাপ এমনিতেই একটি ভয়ঙ্কর বিষধর প্রাণী। সাপকে ভয় পায় না এমন মানুষ পৃথিবীতে নেই। যে কোন প্রাণী সব থেকে শতহস্ত দূরত্ব বজায় রেখে চলাচল করতে পছন্দ করে। যদিও পৃথিবীর সব সাপ বিষাক্ত নয়।

বেশিরভাগ সাপ হলো বিষহীন। বিষধর সাপের সংখ্যা খুবই কম। তবে যে কটি সাপ বিষাক্ত তাদের ছোবলে মৃত্যু পর্যন্ত ঘটতে পারে। তাই সাপের থেকে সবসময় দূরে থাকাই উচিত। সোশ্যাল মিডিয়ায় সাপ খুব জনপ্রিয়। ঠিক সেই কারণেই ফেসবুক, ইনস্টাগ্রাম, ইউটিউব, টুইটারে সাপের ভিডিও এবং ছবি ভাইরাল হতে দেখা যায়।

এইসব ছবি এবং ভিডিও গুলো যে কখনও দেখা যায় সাপের সাথে বেজির লড়াই, কখন আবার সাপ ধরা, অনেক সময় আবার বিভিন্ন ধরনের সাপের সাথে পরিচিতি ঘটনার জন্য বিভিন্ন ধরনের সাপের ভিডিও পোস্ট করা হয়। অন্যান্য প্রাণীর পাশাপাশি সাপের জনপ্রিয়তা সোশ্যাল মিডিয়ায় ব্যাপক।

সোশ্যাল মিডিয়ার জন্যই সাপ সম্পর্কিত ভুল ধারণা গুলি আজ অনেকটাই নির্মূল হয়েছে। এবার একটি সাপ ধরার ঘটনাকে কেন্দ্র করে চাঞ্চল্য ছড়ালো প্রত্যন্ত এলাকায়। ঠাকুর ঘরের ভিতরে ঢুকে গিয়েছে বিশাল আকৃতির এক কোবরা। সেই সাপটিকে বার করতে গিয়ে হিমশিম খেলো এক ব্যক্তি।

সাপটিকে উদ্ধার করার জন্য এক ব্যক্তিকে ডাকা হয়। তিনি গ্রামের মধ্যে প্রবেশ করে এলাকাবাসীকে মাস্ক পড়ার জন্য একটি করে সার্জিক্যাল মাস্ক বিতরণ করেন। কারণ এমনিতেই বেশ খানিকটা নিয়ন্ত্রণে হলেও করোনা পরিস্থিতি চলছে। এরপর তিনি নিজের দুই পায়ে দুটি বস্তা বেঁধে নেন নিজের সেফটির জন্য।

সরাসরি প্রবেশ করেন যে ঘরে সাপ ঢুকে গিয়েছে সেই ঘরে। ঠাকুর ঘরের মধ্যে প্রবেশ করে তিনি দেখতে পান, ঠাকুরের সিংহাসনের পাশে মা লক্ষ্মীর হাঁড়ির পিছনে লুকিয়ে ছিল একটি সাপ। প্রথমে ঠাকুরের সিংহাসন থেকে বাইরে বের করে নিয়ে যাওয়া হয়। এরপর ঐ ব্যক্তি মা লক্ষ্মীর হাঁড়ির পিছন দিকে একটি লাঠি করে,

অল্প খোঁচা দেওয়া মাত্রই সেখান থেকে বেরিয়ে আসে বিশালাকৃতির কোবরা। সাপটি প্রথমে পালানোর চেষ্টা করছিল। কিন্তু সাপ ধরতে আসে ওই ব্যক্তি সুকৌশলে সাপটিকে ধরে নেন। ফণা তুলে সাপটি বারবার ওই ব্যক্তিকে আক্রমণ করতে চেষ্টা করছিল। কিন্তু ব্যর্থ হয়।

ওই ব্যক্তি জানান, এই সাপ খুবই ভয়ঙ্কর। বাড়ির আশেপাশে কোথাও যদি এই সাপ দেখতে পাওয়া যায় তাহলে সাপটিকে অবশ্যই সেই সব জায়গা থেকে বের করে দেওয়া উচিত। না হলে যেকোনো সময় ঘটে যেতে পারে বিপদ। এই সাপটি কামড়ানোর সঙ্গে সঙ্গে রোগীকে যেন হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার কথা বলেন তিনি।

এই সাপের কামড়ে মৃত্যু পর্যন্ত ঘটতে পারে। পারে তাই সকলকে সতর্ক থাকতে বলেন ওই ব্যক্তি। এরপর তিনি সাপটিকে একটি ব্যাগের মধ্যে ভরে নিয়ে চলে যান। “নাগ লোক” নামক একটি ইউটিউব চ্যানেল থেকে সাম্প্রতিক এই সাপ ধরার ভিডিওটি পোস্ট করা হয়েছে।

সাপ ধরার এই দৃশ্য দেখতে প্রচুর জনসমাগম হয়েছিল ওই এলাকায়। এমনটা দেখা গিয়েছে ভিডিওটিতে। সোশ্যাল মিডিয়ায় রীতিমতো ভাইরাল হয়ে গিয়েছে এই ভিডিও। এখনো পর্যন্ত ৭ হাজার দর্শক ভিডিওটি দেখে নেওয়ার পাশাপাশি, প্রচুর সংখ্যক লাইক আর কমেন্ট পড়েছে ভিডিওটিতে। কমেন্ট সেকশনে সকলেই এই ব্যক্তির সাহসের প্রশংসা করেছেন।