গতবছরের তুলনায় বড়লোক হলেন মোদী, বাড়লো সম্পত্তি

লন্ডনের এক বিশেষ অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি দাবি করেছিলেন, কোনও জিনিস তাঁকে সে ভাবে আকর্ষন করে না। মনের দিক থেকে তিনি কিছুটা “ফকির” গোছের। তবে মনের দিক থেকে ফকির হিসেবে বর্তমানে প্রধানমন্ত্রীর ব্যাঙ্ক ব্যালেন্স বেশ লক্ষণীয় বিষয়।

সেভিংস অ্যাকাউন্টে ৩ লক্ষ টাকার মতো জমিয়েছিলেন প্রধানমন্ত্রী। মেয়াদি আমানতে সুদ সমেত টাকার অঙ্ক বেড়েছে ৩৩ লক্ষের কাছাকাছি।

সব দিক হিসেব করে প্রায় ৩৬ লক্ষ টাকা মত সম্পত্তি বেড়েছে নরেন্দ্র মোদির। প্রধানমন্ত্রীর দফতরের পক্ষ থেকে গত ৩০ জুন পর্যন্ত মোদীর আয় এবং মোট সম্পত্তির খতিয়ান প্রকাশ করা হয়েছে। সেই হিসেব অনুযায়ী,প্রধানমন্ত্রীর মত সম্পত্তি প্রায় ২.৮৫ কোটি টাকা

২০১৯ সালের লোকসভা ভোটের আগে যে হিসেব দেওয়া হয়েছে তাতে প্রধানমন্ত্রীর প্রায় ২.৪৯ কোটির সম্পত্তি ছিল প্রধানমন্ত্রীর। প্রধানমন্ত্রীর ঘোষিত অস্থাবর সম্পদ ১.৭৫ কোটি টাকারও বেশি।

শুধু প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি নয়,একই সাথে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ, প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিংহ, বিদেশমন্ত্রী এস জয়শঙ্কর, অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারামন, কৃষিমন্ত্রী নরেন্দ্র সিংহ তোমর প্রমুখেরাও নিজেদের আয় এবং সম্পত্তির পরিমাণ প্রকাশ করেছেন। দেখা গিয়েছে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির সম্পত্তি বেশ কিছুটা বেড়েছে, সেই তুলনায় সম্পত্তি কমেছে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহের।

২০১৯ সালে অমিত শাহের সম্পত্তি ছিল ৩২.৩ কোটি টাকা। এই বছর তা কমে হয়েছে,২৮.৬৩ কোটি টাকা। শেয়ারের বাজারে অস্থিরতা এবং বাজারের দুর্বল অবস্থাই এর জন্য দায়ী। অমিত শাহের ১০ টি অস্থাবর সম্পত্তি রয়েছে গুজরাটে। মায়ের থেকে উত্তরাধিকার সূত্রে পাওয়া সম্পত্তি ১৩.৫৬ কোটি টাকা।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here