কলকাতা হাইকোর্টের নয়া নির্দেশিকা, ওবিসি তালিকায় নাম থাকলেই কেন্দ্রের চাকরিতে আর সংরক্ষণ নয়

কেন্দ্রীয় সরকারের চাকরিতে সংরক্ষণের সুবিধা নিতে গেলে আবশ্যিক প্রয়োজন “ন্যাশনাল কমিশন ফর ব্যাকওয়ার্ড ক্লাসেস” নির্ধারিত সার্টিফিকেট। কলকাতা হাইকোর্টের বিচারপতিরা সাম্প্রতিক একটি মামলার রায় দিতে গিয়ে জানিয়েছেন,রাজ্য সরকারের নির্ধারিত শংসাপত্র এক্ষেত্রে গ্রহণযোগ্য নয়।

বিচারপতিরা জানিয়েছে,ওবিসি তালিকাভুক্ত হলেই যে সরকারি চাকরিতে সুবিধা মিলবে তেমনটা নয়,এর জন্য কেন্দ্রীয় সরকারের ওবিসি তালিকাতে নাম নথিভুক্ত থাকলে তবেই পাওয়া যাবে সংরক্ষণের সুবিধা।

বীরভূমের সিউড়ি সদর এলাকার বাসিন্দা পিন্টু আলি খান সেন্ট্রাল রিজার্ভ পুলিশ ফোর্স বা CRPF-‌এর অসম রাইফেলসে কনস্টেবল পদে প্রার্থী হিসেবে আবেদন করেন ২০১৮ সালে।

২০১২ সালে রাজ্যের তরফ থেকে ইস্যু করা ওবিসি সার্টিফিকেট ওই আবেদনপত্রের সঙ্গে জুড়ে দেন তিনি। তখন তার আবেদন পত্র গৃহীত হয়। এরপর কতৃপক্ষের তরফ থেকে দান করেন তিনি। শারীরিক পরীক্ষা, মেডিক্যাল, ইন্টারভিউ, এনডিওরেন্স টেস্টে অংশগ্রহণ করে উত্তীর্ণ হন পিন্টু।

কিন্তু, জানুয়ারিতে বাছাই পর্বে গিয়ে ধাক্কা খেতে হয় পিন্টুকে। সিআরপিএফ এর তরফ থেকে জানিয়ে দেওয়া হয়, রাজ্য সরকারের ইস্যু করা সার্টিফিকেট গ্রহণযোগ্য নয়। কেন্দ্র নির্ধারিত প্রোফর্মা অনুযায়ী সার্টিফিকেট জমা জমা দিলে তবে গ্রহণযোগ্য হবে।

এর জন্য তোকে দু সপ্তাহ সময় দেওয়া হয়েছিল। এরপর তাকে যেতে হয় এসডিওর কাছে। কিন্তু এসডিও তাকে কেন্দ্র নির্ধারিত প্রোফর্মা অনুযায়ী সার্টিফিকেট দিতে অস্বীকার করেন। অবশেষে কলকাতা হাইকোর্টে যেতে হয় পিন্টুকে।

পিন্টুর আইনজীবী দেবব্রত দাশগুপ্ত বিচারপতি শেখর ববি শরাফের এজলাসে মামলাটি উঠলে সকল বৃত্তান্ত জানিয়ে এসডিও কে প্রোফর্মা অনুযায়ী সার্টিফিকেট দেওয়ার দাবি করেন। রাজ্যের পক্ষ থেকে কৌঁসুলি শান্তনুকুমার মিত্র জানান, কেন্দ্র সরকার নির্ধারিত প্রোফর্মা অনুযায়ী সার্টিফিকেট দেওয়ার অধিকার নেই।

সিআরপিএফ এর পক্ষ থেকে আইনজীবী বি ঝা জানিয়ে দেন, কেন্দ্র নির্ধারিত সার্টিফিকেট না পেলে সংরক্ষিত আসনে নেওয়া যাবেনা পিন্টুকে। বিচারপতি সরাফ জানান,ন্যাশনাল কমিশন ফর ব্যাকওয়ার্ড ক্লাসেস ফরম্যাট এর শংসাপত্র থাকা বাধ্যতামূলক। অতএব খারিজ হয়ে যায় মামলাটি।

২০১৮ সালের ২৮ জুনের সংশোধিত বিল অনুসারে , রাজ্যে সব মিলিয়ে ৯৭ টি শ্রেনিকে ওবিসি তালিকাভুক্ত করা হয়েছে। কিন্তু সব কটি এনসিবিসির ফরম্যাটের অন্তর্ভুক্ত নয়। যদিও, কেন্দ্রীয় সরকারের চাকরিতে প্রতিটি রাজ্যের অভিযুক্ত ব্যক্তিরা সুবিধা পেয়ে থাকেন। পিন্টুর আইনজীবী জানিয়েছেন, এই মামলাটি আরও উচ্চতর পর্যায়ে নিয়ে যাওয়া হবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here