“নুসরত, তোমার নতুন সঙ্গীর সঙ্গে ভালো থেকো”, বললেন স্বামী নিখিল জৈন

সংবাদমাধ্যমের জিজ্ঞাসায় নুসরতের স্বামী নিখিলের একটাই উত্তর, তিনি নুসরতের গ-র্ভে-র স-ন্তানের বাবা নন। তিনি নিজেই অবা-ক হয়ে যাচ্ছেন কারণ তাকে এই কথা বারবার বলতে হচ্ছে।

নিখিলের দাবি, “আমি জানিও না নুসরত মা হতে চলেছে। এই খবর আমার কাছে আসেনি। আসার পথও বন্ধ। আর আমরা কেউ যোগাযোগ রাখি না।

নুসরত আর আমি অনেকদিন থেকেই আলাদা থাকি। নয়-নয় করে ছ’মাস হয়ে গেল।” যদিও এই বিষয়ে এখনো পর্যন্ত মুখ খোলেননি নুসরত।

প্রেম করে বিয়ে হয়েছিল নিখিল আর নুসরত জাহানের। তুরস্কে গিয়ে বিয়ে করেছিলেন দুজনে। যদিও নুসরতের এই দ্বিতীয় বিয়ের রেজি-স্ট্রে-শন হয়নি।

বিয়ের পর থেকেই নিখিল এবং নুসরত “কাপল গোলস” দিতে শুরু করেন। নিখিলের ব্যবসার প্রধান মুখ হয়ে উঠেছিলেন নুসরত জাহান।

স্বামী হিসেবে নিখিল নুসরতের খুশির দিকে খেয়াল রাখতেন। নিজের পরিবারের সঙ্গে বাকবিতণ্ডায় জড়িয়ে সম্পর্ককে পরিণতি দিয়েছিলেন নিখিল।

বন্ধুবান্ধব ও পরিবারের সঙ্গে বেশ খানিকটা দূরত্ব তৈরি হয় নিখিলের। তবে বিয়ের একঘেয়েমি সহ্য হচ্ছিলনা নুসরতের। তাই তিনি নতুন করে প্রেমে পড়েন।

সঙ্গী হিসেবে বেছে নিয়েছেন যশ দাশগুপ্তকে। তাঁর সাথে অজমের দরগাতে ঘুরতে গিয়েছিলেন নুসরত। জনপ্রিয় একটি সংবাদ মাধ্যম সেই ভিডিও সামনে আনে।

এরপর থেকে বদলে যায় নিখিল আর নুসরতের সম্পর্কের সমীকরণ। নুসরত বালিগঞ্জের ফ্ল্যাটে একাই থাকতে শুরু করেন।

তবে এখন বালিগঞ্জের ফ্ল্যাটে একা থাকছেন না নুসরত। যশ দাশগুপ্ত তার সারা দিনের বেশিরভাগ সময়টা কাটান নুসরতের সঙ্গে।

অন্যদিকে নিখিল নুসরত শুধু নয়, নিজের পরিবারের সঙ্গে কোনো যোগাযোগ রাখেননি। নিখিল জানিয়েছেন, “এখন যে নতুন সঙ্গীর সঙ্গে ও আছে, তার সঙ্গেই ভাল থাক। ঈশ্বর ওদের মঙ্গল করুন।

গত ছ’মাস ওর সঙ্গে আমার সম্পর্ক নেই। আমি একজন সাধারণ মানুষ। আমার পরিবারের মূল্যবোধ নিয়ে আমি ভাল আছি।”