বংশে কন্যা সন্তান এসেছে ৬০০ বছর পর, জন্মদিনে আদুরে মেয়েকে চাঁদে জমি কিনে উপহার দিলেন মা-বাবা

আজ‌ও দেশের কোনো কোনো প্রান্তে গর্ভে কন্যা এলে ভ্রুণ নষ্ট করে দেওয়া হয়। সন্তান জন্মানোর পর তাকে ভাসিয়ে দেওয়া হয়।

মেয়েদের শিকার হতে হয় লালসা। ধর্ষণ করে মেরে ফেলা হয়। শ্বশুরবাড়ির অত্যাচারের মুখে পড়তে হয়… এই তালিকা অবর্ণনীয়।

কিন্তু কয়েনের উল্টোপিঠ‌ও তো আছে। আর তার‌ই নজির মিলল এবার। বিহারের মধুবনী জেলার ঝাঁঝাড়পুরের এক দম্পতি বিরল চিত্র স্থাপন করেছেন।

ডক্টর সুধা ঝা ও ডক্টর সুরবিন্দর কুমার তাঁদের মেয়ের দশম জন্মদিনে একটি বিশেষ উপহার দিলেন। যা ভীষণ স্পেশাল। মেয়েকে চাঁদে একটুকরো জমি উপহার দিলেন তাঁরা। জানা গিয়েছে, তাঁদের বংশে গত ৬০০ বছরে কোনো কন্যাসন্তান জন্মায়নি। তাই তাঁদের মেয়ে যে ভীষণ স্পেশাল তা বলাই বাহুল্য। স্পেশাল মেয়ের জন্য স্পেশাল উপহার। চাঁদে একটুকরো জমি। ঝা পরিবার জানায়, চাঁদে জমি কেনার বিষয়টি তাঁরা জানতে পেরেছিল গুজরাটের এক ব্যবসায়ীর কাছ থেকে। তিনি তাঁর মেয়ের জন্য জমি কিনেছিলেন। তখন‌ই ঝা দম্পতি স্থির করে তাঁরাও মেয়েকে এই উপহার‌ই দেবেন। আমেরিকার লুনা স্যাটেলাইট ইন্টারন্যাশনাল তাদের কাছে সমস্ত নথিপত্র পাঠিয়েছিল তাঁরা। সকলের পাসপোর্ট যাচাই করার পর দূতাবাসে যোগাযোগ করা হয়েছিল।

এরপর তাদের কাছে কনফার্মেশন মেইল আসে। চাঁদে স্থিত 23°34’8″ দক্ষিণ অক্ষাংশ × 7°57’50” পশ্চিম দ্রাঘিমাংশে মেঘের সাগরে তাদের মেয়ের নাম লেখা হয়েছে। তাদের কাছে সব ডকুমেন্টগুলি পার্সলে আসে এবং সেখানে তাদের মেয়ের স্বাক্ষর করানোর পর তারা সেটিকে ফ্যাক্স করে। মেয়ের কাছে গিফটের একটা বিশেষ পোস্টকার্ডও আসে, বলাই বাহুল্য যারপরনাই খুশি সে। ওই দম্পতি বলেছেন যে তাদের দেখে আরো মানুষ অনুপ্রাণিত হবেন তাই নিজেদের স্যোশাল মিডিয়ায় একথা পোস্ট করেছেন তাঁরা।