মেহেবুবা মুফতিকে বেআইনিভাবে আটক করার অভিযোগ

মাত্র কয়েকমাস আগে বন্দিদশা থেকে মুক্তি পেয়েছেন কাশ্মীরের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী মেহেবুবা মুফতি। তবে তাঁকে যে কারণে গৃহবন্দী থাকতে হয়েছিল সেই লক্ষ্য থেকে কিন্তু তিনি এখনও সরে আসেননি।

কাশ্মীরে ৩৭০ ধারা ফিরিয়ে আনার দাবিতে উঠেপড়ে লেগেছেন মেহেবুবা মুফতি। মেহেবুবা মুফতি দলের একাধিক নেতাদের বিরুদ্ধে বিচ্ছিন্নতাবাদের দেওয়ার অভিযোগও উঠেছে।

আবার নাকি তাকে পুলিশ বেআইনিভাবে আটক করেছে। এমনটাই টুইটারে জানিয়েছেন পিডিপি নেত্রী মেহেবুবা মুফতি।

শুক্রবার মেহবুবা মুফতি টুইট করেন। একাধিক টুইট করে তিনি বলেন,”আমাকে ফের বেআইনিভাবে আটক করা হয়েছে। গত দু’দিন ধরে কাশ্মীর প্রশাসন ওয়াহিদ পারার পরিবারের সঙ্গে দেখা করতে দিচ্ছে না আমাকে।

বিজেপির মন্ত্রীরা আর ওদের অনুগতরা কাশ্মীরের প্রতিটি কোণায় ঘুরে বেড়াচ্ছে। সমস্যা শুধু আমার ক্ষেত্রে?” একই সঙ্গে মেহেবুবার মেয়ে ইলতিজা জাভেদকে গৃহবন্দি করা হয়েছে বলে অভিযোগ।

মেহেবুবা মুফতি কন্যা ইলতিজা জাভেদ কাশ্মীরে ৩৭০ ধারা ফিরিয়ে আনা নিয়ে বারবার সোস্যাল মিডিয়ায় সরব হয়েছেন। প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, কয়েকদিন আগে জ”ঙ্গিদের সঙ্গে যোগাযোগের অভিযোগে পিডিপির যুব নেতা ওয়াহিদ পারা গ্রেফতার হয়েছেন এনআইএর হাতে।

কাশ্মীরের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী মেহবুবা মুফতি তাঁর পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে দেখা করতে চাইলেও প্রশাসনিক অনুমতি মেলেনি। ওয়াহিদ পারার গ্রেফতারিকে বেআইনি ঘোষণা করেছেন মেহেবুবা মুফতি।

রাজনৈতিক চরিতার্থ সফল করতে গ্রেপ্তার করা হয়েছে বলে জানান তিনি।এমন কি তাঁকে ওই ব্যক্তির পরিবারের সঙ্গে দেখা করতে না দিয়ে আটক করার কথা জানিয়েছেন মেহবুবা মুফতি।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, গতবছর কাশ্মীরের বিশেষ মর্যাদা প্রত্যাহার করা হয়। কিন্তু তার আগে প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী মেহবুবা মুফতি, ওমর আবদুল্লা-সহ একাধিক স্থানীয় নেতানেত্রীকে আটক করে সরকার।

তাঁদের গৃহবন্দি করে রাখা হয়। কাশ্মীরের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী মেহেবুবা মুফতি অক্টোবর মাসের দ্বিতীয় সপ্তাহে বন্দিদশা থেকে মুক্তি পেয়েছেন। তারপরে ৩৭০ ধারা ফেরানোর দাবিতে গুপকার জোট তৈরি করেন মুফতি। কেন্দ্রীয় সরকার বিষয়টিকে কোনভাবেই ভালো চোখে দেখেননি।