“বাংলাকে পরাধীন করতে দেব না”, বিজেপির “বঙ্গভঙ্গ” রোধে মমতা

“বাংলাকে পরাধীন করতে দেব না। বাংলাকে ভাগ করতে চাওয়ার উপযুক্ত জবাব দেবে বাংলার মানুষ” সোমবার এমনটাই বললেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

তাঁর মতে, বঙ্গভঙ্গের ষড়যন্ত্র করছে বিজেপি। এর পরেই তিনি কেন্দ্রকে চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দেন। জানিয়ে দেন, বাংলাকে ভাগ হতে দেবেন না তিনি।

নির্বাচনের ফলাফল প্রকাশের পর থেকেই বাংলাজুড়ে চলা অশান্তির পরিবেশ নিয়ে সরব হয়েছে বিজেপি। তাদের অভিযোগ, বাংলাদেশ, নেপাল-সহ একাধিক দেশ থেকে উত্তরবঙ্গে দুষ্কৃতীরা ঢুকছে। উত্তরবঙ্গের জেলাগুলোকে “সেফ প্যাসেজ” হিসেবে ব্যবহার করছে রোহিঙ্গারা।

তাই বিজেপি সাংসদ বিধায়করা উত্তরবঙ্গের রাজ্যগুলিকে কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল হিসেবে গণ্য করার দাবি জানান। জলপাইগুড়িতে বিজেপির বৈঠকে এমনটাই দাবি উঠেছে বলে সূত্রের মারফত জানা গেছে। বিজেপির এই ষড়যন্ত্রের বিরুদ্ধে এবার গর্জে উঠলেন মমতা।

নবান্নে আয়োজিত সোমবারের সাংবাদিক বৈঠকে মমতা বলেন, “বাংলাকে ভাঙতে এলে বাংলার মানুষ তার জবাব দেবে। কিছুদিন আগে ভোটে হেরেও শিক্ষা হয়নি ওঁদের।”

মুখ্যমন্ত্রীর প্রশ্ন, “কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল করা মানে কী? দিল্লির পায়ে পড়তে হবে? জম্মু কাশ্মীরের মতো মুখ বন্ধ করে রাখতে হবে?” তাঁর প্রশ্ন, “কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল করা মানে কী? দিল্লির পায়ে পড়তে হবে? জম্মু কাশ্মীরের মতো মুখ বন্ধ করে রাখতে হবে?”

এরপর মুখ্যমন্ত্রী বলেন, “এ সব করা এত সহজ নয়। এর জন্য রাজ্যের অনুমতি লাগে। বিজেপি চাইলে জলপাইগুড়ি বিক্রি করে দিতে পারে না। আলাদা করে আলিপুরদুয়ার বিক্রি করে দিতে পারে না”।

বিজেপি কর্মীদের আক্রমণ করে তিনি বলেন, “যাঁরা দু-চারটে ফেক ভিডিও করে বাংলাকে বদনাম করার চেষ্টা করছে, তাদের পরে বুকে লিখে ঘুরতে হবে, বিজেপি করি না।”

শনিবার জিএসটি কাউন্সিলের বৈঠকে কেন্দ্রের বিরুদ্ধে বাংলার অর্থমন্ত্রী অমিত মিত্রের কণ্ঠরোধের অভিযোগ উঠেছে। এদিন সাংবাদিক বৈঠকে সেই বিষয়ে তীব্র সমালোচনা করেন মমতা। তিনি বলেন, “লজ্জা করে না জিএসটির উপর কর নিচ্ছেন। সেদিন অমিত মিত্র বলতে গিয়েছিল তাই ওঁর কণ্ঠরোধ করা হয়।”