“চার্টার্ড বিমানে গিয়েছিলেন, টোটোয় ফিরতে চাইছেন”, রাজিবকে আক্রমণ করলেন কুনাল ঘোষ

দলের যারা ফিরতে চাইছে তাদের সবাইকে দলে ফেরাতে নারাজ রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তৃণমূল নেত্রীর তালে তাল মিলিয়ে এবার স্বভাব সিদ্ধ ভঙ্গিতে মামলা করে রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়কে আক্রমন করে বসলেন রাজ্য তৃণমূল কংগ্রেসের সাধারণ সম্পাদক কুনাল ঘোষ।

বিজেপি নেতা রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়ের তৃণমূলে প্রত্যাবর্তন নিয়ে রাজনৈতিক মহলে জোর জল্পনা শুরু হতেই আক্রমণ কুণালের।

রবিবার রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়কে নিশানা করে তিনি বলেন, “ভোটের আগে যাঁরা বিজেপিতে গিয়েছিলেন, তাঁরা কেউ আমাদের জিজ্ঞাসা করে যাননি।

এখন তাঁরা কেউ বিজেপিতে থাকতে চাইছেন না। তখন চার্টার্ড বিমানে গিয়েছিলেন। এখন টোটোয় করে ফিরতে চাইছেন”। মুকুল রায় ছেলেকে নিয়ে ১১ জুন তারিখে বিজেপি থেকে তৃণমূলে ফিরেছেন।

ঠিক তার পরেই রাজ্য বিজেপিতে অনেকেই বেসুরো হয়েছেন। রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায় কুণাল ঘোষের বাড়ি যাওয়ার ঘটনা নিয়ে এবার তাঁকে নিয়েও জল্পনা শুরু হয়েছে।

কোন্নগরের নবগ্রামে রবিবারের দলীয় কর্মসূচিতে যোগদান করে কুনাল ঘোষ বলেন, “অনেকেই ফিরতে চাইছেন। বলছে, বিজেপি বাংলার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করছে। তাই আর বিজেপিতে থাকতে চান না।

কিন্তু তাঁদের ফেরা না ফেরা সবটাই নির্ভর করছে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের উপর। দলনেত্রীর ওপর আস্থা রেখে যাঁরা লড়েছেন, তাঁদের ভাবাবেগে আঘাত লাগে, এমন কোনও কাজ করবে না তৃণমূল”।

তিনি জানান, “বিজেপি ক্ষমতায় আসছে ভেবে হুজুকে মেতেছিলেন অনেকে। দলে দলে বিজেপিতে গিয়ে তৃণমূলের মনোবল ভাঙার চেষ্টা করেন। দলের বিরুদ্ধে প্রচার করেন, প্রার্থীও হন।

তাঁদের বাদ দিয়েই তৃণমূল জিতেছে। কে কাকে হোয়াটস অ্যাপ করছেন, কে কাকে চিঠি পাঠাচ্ছেন, কে কার সঙ্গে সৌজন্য বৈঠক করছেন সবকিছুর উপর নজর রাখছে দল। সবাই বলব, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের উপর আস্থা রাখুন”।

সূত্রের খবর, রাজীব যাতে তৃণমূলে না যান, তার জন্য তাঁকে বোঝাবেন দিলীপ ঘোষ। তবে রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায় এর রাজনৈতিক ভবিষ্যৎ কি, সে দিকেই নজর রাজনৈতিক মহলের।