“বাংলাকে ভাঙতে চায় বর্তমান সরকার”, জোর গলায় বললেন জেপি নাড্ডা

উত্তরবঙ্গ সফরে এসেছিলেন বিজেপি–র সর্বভারতীয় সভাপতি জেপি নাড্ডা। তিনি বাঙালি নন, তাই বলে বাঙালির মনোভাবের সঠিক নিরীক্ষণ করার মতন ক্ষমতা রয়েছে তাঁর। সোমবার শিলিগুড়িতে দলের সাংগঠনিক ও কোর কমিটির সঙ্গে বৈঠকের আয়োজন করা হয়। বৈঠকের শেষে দীর্ঘ বক্তৃতা রাখেন বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি জেপি নাড্ডা।

বক্তৃতা দিতে গিয়ে তিনি বলেন,”ভাষা হয়তো বুঝতে পারি না। কিন্তু বাংলার মানুষের মন আমি ভালই বুঝতে পারি। দেখবেন, যখন কেউ কারও মন বুঝতে পারে তখন কঠিন ভাষাও বোধগম্য হয়”।

একই সঙ্গে বিজেপির মূলনীতি হিসেবে নরেন্দ্র মোদির সেই বাণী,”সব কা সাথ, সব কা বিকাশ, সব কা বিশ্বাস” কথাটি ও মঞ্চে তুলে ধরেন তিনি। এদিন নাড্ডা বলেন,”সবাইকে সঙ্গে নিয়ে চলতে হবে। সবাইকে একসঙ্গে নিয়ে এগিয়ে যেতে হবে। এটাই আমরা মেনে চলি”।

এদিন রাজ্যের শাসকদলের বিরুদ্ধে তীব্র নিন্দা জানিয়ে জেপি নাড্ডা বলেন,”সকলের মধ্যে আলাদা প্রয়োজনের সৃষ্টি করে মানুষে মানুষে বিভেদ ঘটাচ্ছে ওরা। ভোট এলেই নিজেদের স্বার্থ সিদ্ধি করতে সবার মধ্যে বিভেদের সৃষ্টি করে রাজত্ব করে তৃণমূল।”

বিজেপির এই কেন্দ্রীয় নেতা এদিন পষ্ট ভাবে জানিয়ে দেন,” মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নেত্বত্বে পশ্চিমবঙ্গ সরকার এই বিভেদের রাজনীতিই করছে। বাংলাকে ভাঙতে চায় বর্তমান সরকার।”

এদিন বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি অভিযোগ করেন,”এখানকার বর্তমান সরকারের কারণে আজ ‌বহু কেন্দ্রীয় প্রকল্প এবং সুবিধা থেকে বঞ্চিত পশ্চিমবঙ্গবাসী। যদি কেই সেই প্রকল্পের সুবিধা দাবি করার চেষ্টা করে তবে কোনও সংগঠনকে টাকা দিয়ে মুখ বন্ধ করে রাখা হয় আবার কাউকে এই দাবি তুলে নিতে জোর করা হয়”। লোভ দেখিয়ে অনেক বিজেপি কর্মীকে তৃণমূলে যোগদান করানো হচ্ছে বলেও অভিযোগ করেন জেপি নাড্ডা।

তৃণমূল কংগ্রেসকে কটাক্ষ করে এদিন বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি জেপি নাড্ডা বলেন,”ক্ষমতায় আসার পর প্রথম ৪ বছর মানুষের ওপর অত্যাচার করে ঠিক শেষ বছরে ভোটের জন্য বিভিন্ন লোভনীয় প্রস্তাব দেয়।

এটাই হল তৃণমূলের কাজ। কিন্তু বিজেপি তা নয়। বিজেপি যা বলে তা করে দেখায়, যে করে হোক করে দেখায়। বিজেপি সমাজকে একত্রিত রাখে আর তৃণমূল সমাজকে ভাঙে। আমরা সবার উন্নতির লক্ষ্যে সবাইকে সঙ্গে নিয়ে চলি আর ওরা সমাজকে টুকরো টুকরো করে ভোটব্যাঙ্কের রাজনীতি খেলে।”

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here