কোথায় আচ্ছে দিন! মাথাপিছু আয়ে ভারতকে পিছনে ফেলল প্রতিবেশী বাংলাদেশও

সারা দেশজুড়ে অব্যাহত ক’-রো’-‘না পরিস্থিতি মোকাবেলা নিয়ে চারিদিকে সমা’লো”চিত হচ্ছেন, প্রধানমন্ত্রীর নরেন্দ্র মোদি তথা বিজে’পি সরকার। এর উপরে দেশের অর্থনৈতিক সং’কট যেন গোদের ওপর বি’ষফোঁ-‘ড়া হয়ে দাঁড়িয়েছে।

বাংলাদেশের জাতীয় পরিকল্পনা বিষয়ক মন্ত্রীর দাবি কাটা ঘায়ে নু’নের ছিটের মতো কাজ করছে। বর্তমানে বাংলাদেশের মাথাপিছু আয় ভারতের থেকে বেশি বলে দাবি করেছেন বাংলাদেশের জাতীয় পরিকল্পনা বিষয়ক মন্ত্রী।

বাংলাদেশের জাতীয় পরিকল্পনা বিষয়ক মন্ত্রীর এই দাবি শুনে অনেকেই বলছেন, গত বছরের আইএমফ এর পূর্বাভাস একেবারে হাতেনাতে মিলে গেল। বাংলাদেশের পরিকল্পনা মন্ত্রকের মন্ত্রী এম মান্নান জানান, দেশের মাথাপিছু আয় বৃদ্ধি পেয়ে হয়েছে ২ হাজার ২২৭ মার্কিন ডলার।

বাংলাদেশি মুদ্রায় এর পরিমাণ ১ লক্ষ ৮৮ হাজার ৮৭৩ টাকা। আইএমএফ রিপোর্টে জানা গিয়েছিল, ২০২০ সালে চলতি বাজারমূল্যে মাথাপিছু জিডিপিতে ভারতকে পেছনে ফেলবে বাংলাদেশ। বাংলাদেশের মাথাপিছু জিডিপি ১ হাজার ৮৮৮ ডলারে পৌঁছানোর পাশাপাশি ভারতের ক্ষেত্রে হবে ১ হাজার ৮৭৭ ডলার।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, গত বছর বাংলাদেশের মাথাপিছু আয় ছিল ২ হাজার ৬৪ মার্কিন ডলার। সেই হিসেব অনুযায়ী, ১৬৩ ডলার মাথা পিছু আয় বৃদ্ধি পেয়েছে, যা গতবারের চেয়ে ৯ শতাংশ বেশি।

বর্তমানে ভারতের মাথা পিছু আয় ১,৯৪৭ মার্কিন ডলার। বাংলাদেশের তুলনায় ২৮০ মার্কিন ডলার কম ভারতের মাথাপিছু আয়। গতবছর করো না পরিস্থিতির জন্য ভারতের আর্থিক বৃদ্ধির হার কম ছিল।

মাথাপিছু আয় বলতে বোঝায়, নির্দিষ্ট ভৌগোলিক এলাকায় বাসবাসকারী সকলের গড় ইনকাম। দেশের জাতীয় আয়কে মোট জনসংখ্যা দ্বারা ভাগ করলে সে দেশের মাথা পিছু আয় জানা যায়।

স্বাভাবিকভাবেই ভারতের জাতীয় আয়ের কোনো উন্নতি না হওয়ার কারণে মোদি সরকারের উপরে আং”গুল উঠছে। যদিও কেন্দ্রীয় সরকারের পক্ষে কোনো বিবৃতি এখনো দেওয়া হয়নি।