“সমস্ত জ’ঙ্গি মাদ্রাসায় তৈরি হয়”, বিতর্কিত মন্তব্য মধ্যপ্রদেশের বিজেপি মন্ত্রীর

আসাম রাজ্যে মাদ্রাসা বন্ধের নির্দেশ দেয়া হয়েছে। তবে কি এবার মধ্যপ্রদেশে বন্ধ হতে চলেছে মাদ্রাসা? সেই প্রশ্নই ঘোরাফেরা করছে রাজনৈতিক মহলে। রাজ্যের মন্ত্রী ঊষা ঠাকুরের মন্তব্য এমনই এক ইঙ্গিত দিচ্ছে।  জ’ঙ্গি মাদ্রাসায় তৈরি হয় বলে দাবি তাঁর। মাদ্রাসায় সরকারি সহায়তা বন্ধ করার পক্ষে সায় দেন তিনি।

সূত্র মারফত খবর, এদিন তিনি বলেন,”সমস্ত জঙ্গি মাদ্রাসায় তৈরি হয়। তারা জম্মু ও কাশ্মীরকে আতঙ্কবাদীদের ফ্যাক্টরি বানিয়ে রেখেছে। মাদ্রাসা জাতীয়তাবাদ মেনে চলতে পারে না, তাই সমাজের সম্পূর্ণ অগ্রগতি নিশ্চিত করতে তাদের বর্তমান শিক্ষাব্যবস্থার সঙ্গে মিশিয়ে দেওয়া উচিত।”

ইন্দোরের এক সাংবাদিক সম্মেলনে তিনি বলেন,”আপনারা যদি এই দেশের নাগরিক হন, তাহলে দেখতে পাবেন সমস্ত মৌলবাদী ও সন্ত্রাসবাদী মাদ্রাসাতেই পড়াশোনা করেছে”।

তাঁর মতে,মাদ্রাসাগুলি যদি শিশুদের মধ্যে জাতীয়তাবাদের উন্মেষ ঘটাতে ব্যর্থ হয় তাহলে তাদের মূলধারার শিক্ষা ব্যবস্থার সঙ্গে মিশিয়ে দেওয়া উচিত। এরপর তাঁর কাছে যখন জানতে চাওয়া হয় তিনি ঠিক কি চাইছেন? তিনি কি চান যে মাদ্রাসাগুলো বন্ধ হয়ে যাক? এর উত্তরে বলেন, তিনি অবশ্যই দ্বিতীয়টির পক্ষপাতী।

অসমের মন্ত্রী হিমন্ত বিশ্বশর্মা শনিবার জানান,” মাদ্রাসা বোর্ড ভেঙে দেব। সাধারণ স্কুল ও মাদ্রাসার মধ্যে অনুদানের সমতা রাখার বিজ্ঞপ্তি তুলে নেওয়া হবে। এবং আমরা সমস্ত সরকারি মাদ্রাসাকে সাধারণ স্কুলে রূপান্তরিত করব”।

সরকার পরিচালিত সংস্কৃত টোলগুলিও বন্ধ করে দেওয়া হবে বলে জানান তিনি। তিনি আরও বলেন,”বেসরকারি মাদ্রাসা বন্ধ করে দেওয়ার কোনও পরিকল্পনা নেই। আমরা তাতে নিয়ন্ত্রণ আনব”।