গিটার হাতে নিয়ে অসাধারণ সুরে নতুন গান গাইল ভুবন বাদ্যকর, তুমুল ভাইরাল ভিডিও

বিরভূমের দুবরাজপুর এর লক্ষীনারায়নপুর পঞ্চায়েতের কুড়ালজুরি গ্রামের বাসিন্দা ভুবন বাদ্যকারকে কে না চেনে! বর্তমানে সোশ্যাল মিডিয়ায় তিনি “বাদাম কাকু” নামেই খ্যাত। তার সৃষ্টি এবং গাওয়া “কাচা বাদাম” গানটি রীতিমতো হইচই ফেলে দিয়েছে সোশ্যাল মিডিয়ায়।

তবে ভুবন বাদ্যকারের মুখে এদিন তার চিরচেনা “কাচা বাদাম” গানটির পরিবর্তে শোনা গেল এক অন্য সুর।সম্প্রতি একটি ভিডিও ভাইরাল হয়েছে যেখানে দেখা যাচ্ছে যে বাদামকাকু নতুন ভাবে ধরা দিচ্ছেন তারই নতুন গানের এক ভিডিওতে। ভিডিওতে হাতে একতারা নিয়ে চিরচেনা ছন্দ থেকে বেরিয়ে বাউল গান গাইতে দেখা গেল ভুবনকে।

এদিন এক ইউটিউব চ্যানেল এর পক্ষ থেকে তাঁর বাড়ি গিয়ে, তার ইন্টারভিউ নেওয়ার পর তার কাছ থেকে দু এক কলি গান শোনাবার অনুরোধ করা হলে তিনি বিশিষ্ট বাউল গায়ক রাজু গোষ্ঠ দাসের গাওয়া “কি মাছ ধরেছ বড়শি দিয়া” গানটি গেয়ে শোনান। উল্লেখ্য, পেটের দায়ে বহুদিন হয়েছে বাউল গানের জগত থেকে বিচ্ছিন্ন তিনি তবে গানটি গাওয়ার মাধ্যমে তিনি যে একজন জাত শিল্পী একথা প্রমান দিলেন ভুবন।

দীর্ঘদিন চর্চায় না থাকলেও তাঁর গানের গলা কিন্তু এখনো সুন্দর। মাথায় অস্থায়ী ছাদ ও পেটের দায়ে বাদামের ব্যবসা করে জীবনযাপন করা এই মানুষটির গানের প্রতি ভালোবাসাই আবার তাকে ফিরিয়ে আনল জীবনের মূল স্রোতে। বর্তমানে বাদাম কাকুর ব্যাপারই আলাদা। দিনের আলো ফুটতেই বীরভূমের কড়ালজুড়ি গ্রামে বাদামওয়ালার বাড়িতে লোকের ভিড় বাড়ছে।

ইউটিউবাররা হাজির হয়ে যাচ্ছেন। অনেক স্বেচ্ছাসেবী সংস্থা তাঁকে বাড়িতে এসে সংবর্ধনা দিচ্ছেন। কেউ বা তাঁর হাতে বাদ্য যন্ত্র তুলে দিচ্ছেন। কড়ালজুড়ি গ্রামে এখন হইহই ব্যাপার। গান নিয়ে কি পরিকল্পনা আপনার? বাদামওয়ালার বক্তব্য, ‘সকাল থেকেই বাড়িতে হাজির হয়ে যাচ্ছেন অনেকে। সময় পাচ্ছি না গান লেখার। ইচ্ছে আছে গান লেখা ও গান করার।’

বীরভূমের কড়ালজুড়ির বাসিন্দা বছর পঞ্চান্নর ভুবন বাদ্যকার গত ১০-১২ বছর ধরে বাদাম বিক্রি করছেন। স্থানীয় হাইস্কুলে পঞ্চম শ্রেণিতে ভর্তিও হয়েছিলেন। নানা কারণে পঞ্চম শ্রেণিতে পড়ার পর আর পড়াশুনো এগোয়নি। ভূবন জানিয়েছেন, এর আগে তিনি মুনিশ খাটতেন। সংসারে স্ত্রী ও দুই ছেলে রয়েছে। মেয়ের বিয়ে হয়েছে।

তবে অভাবের সংসারেও তাঁকে কিছু সাহায্য করতে হয় বলে জানিয়ে দেন ভূবন। ঝাড়খন্ড, বর্ধমান, ভীরভূমে ঘুরে ঘুরে বাদাম বিক্রি করতেন গায়ক বাদাম ওয়ালা। বাদাম বিক্রি করতে করতে ভূবনের গান শোনার মজা নেওয়া আর হয়তো হবে না ক্রেতাদের। রাস্তায় ভুবনবাবুকে দেখলেই গান শুনতে চাইছে সাধারণ মানুষ। সেই আব্দার মেটাচ্ছেনও তিনি।

তাঁর কথায়, ‘সবাই ধরুন গানটা শুনতে চাইছে। আমার ‘ফেমাস’ গান সবাই শুনতে চাইছে। গান না করলে আমারও খারাপ লাগছে। গানই করতে চাইছি। লোকে বলছে আপনি এত বড় ‘সেলিব্রেটি’ হয়েছেন। ‘সেলিব্রেটি’ মানে তো আমি জানি না। মাথা খারাপ হয়ে যাচ্ছে। একবার মাথা ঘুরে পড়েও গিয়েছিলাম।’