“আপনার একমাত্র ভরসা বিজেপি”, অধীরকে বিজেপিতে যোগ দিতে সরাসরি আহ্বান জানালেন দিলীপ ঘোষ

বিজেপি ছাড়া তৃণমূল কংগ্রেসের কিছুদিন আগেই যোগদান করেছেন আসানসোলের সাংসদ বাবুল সুপ্রিয়। বিভিন্ন রাজনৈতিক সংগঠনের আরো বেশ কিছু নেতা আবারো তৃণমূল কংগ্রেসে যোগদান করতে পারে বলে শোনা যাচ্ছে।

এরই মাঝে আবার অধীর চৌধুরীর দলবদলের জল্পনা উসকে দিলেন বিজেপির সর্বভারতীয় সহ-সভাপতি দিলীপ ঘোষ। অধীর চৌধুরীকে বিজেপিতে যোগদানের পরামর্শ দিলেন তিনি।

ভবানীপুরে উপনির্বাচনের ত্রিমুখী লড়াইয়ের দিন ঘনিয়ে আসছে। সেখানে উপনির্বাচনের লড়বেন তৃণমূল কংগ্রেসের প্রার্থী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়, বিজেপি প্রার্থীর প্রিয়াঙ্কা টিব্রেওয়াল এবং সিপিএম প্রার্থী শ্রীজীব বিশ্বাস।

একই দিনে ভবানীপুর ছাড়াও মুর্শিদাবাদের সামশেরগঞ্জ ও জঙ্গিপুর বিধানসভায় ভোট। তারই প্রচার করবেন বিজেপির নয়া সর্বভারতীয় সহ-সভাপতি দিলীপ ঘোষ। প্রচার শুরুর আগে বহরমপুর রেল স্টেশনে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে অধীর চৌধুরীর দলবদল এর জল্পনা উস্কে দেন তিনি।

এদিন দিলীপ ঘোষ জানান, “অধীর চৌধুরী ডুবন্ত জাহাজ ছেড়ে যেতে চাইছেন। কিন্তু তিনি যেখানে যেতে চাইছেন সেটাও ফুটো হয়ে গিয়েছে। এখন তাঁর কাছে একটাই ভরসা ভারতীয় জনতা পার্টি।” ভবানীপুরের ৭৩ নম্বর ওয়ার্ডে বুধবার প্রচারে যায় বিজেপি।

বিজেপির নয়া রাজ্য সভাপতি সুকান্ত মজুমদার, সাংসদ জ্যোতির্ময় সিং মাহাতো, কেন্দ্রীয় মন্ত্রী হরদীপ সিং পুরী প্রিয়াঙ্কার হয়ে প্রচার করেন। কোভিডবিধি লঙ্ঘনের অভিযোগ তুলে পুলিশ তাদের প্রচারে বাধা দেয়। সেই করলে পুলিশের সঙ্গে বাকযুদ্ধে জড়িয়ে পড়ে বিজেপি নেতৃত্ব।

এদিন সেই ঘটনার কথা উল্লেখ করে বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি দিলীপ ঘোষ বলেন, “প্রিয়াঙ্কাকে ঢুকতে দেওয়া হচ্ছে না সেখানে। ফলে বোঝা যাচ্ছে ভয় পেয়েছে তৃণমূল”।

কলকাতার জল যন্ত্রণা নিয়ে আরো একবার রাজ্য সরকারকে আক্রমণ করলেন দিলীপ ঘোষ। জমা জলে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে রাজ্যে প্রা”ণহানির ঘটনা প্রসঙ্গে সরকারের বিরুদ্ধে উদাসীনতার অভিযোগ আনেন বিজেপির সর্বভারতীয় সহ সভাপতি দিলীপ ঘোষ।