জনপ্রিয় গানে দুর্দান্ত নেচে তাক লাগাল যুবতী, মুহূর্তে ভাইরাল ভিডিও

বর্তমানে পৃথিবীর খবর জানার জন্য একমাত্র মাধ্যম হলো সোশ্যাল মিডিয়া।পৃথিবীর নানা অদ্ভুত আশ্চর্য ঘটনাবলী আমরা সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমে দেখতে পারি ও জানতে পারি। এমনকি সোশ্যাল মিডিয়াকে কাজে লাগিয়ে অনেক মানুষ তার সুপ্ত প্রতিভা কে বিশ্বের সামনে আনার সুযোগ পান।

আমাদের দেশের কোন কোন এমন অনেক প্রতিভা আছে যারা উপযুক্ত সুযোগের অভাবে সুপ্তই থেকে যান, কিন্তু আজকাল সোশ্যাল মিডিয়া সেই অসুবিধা দূর করেছে। সিনেমাতে আমরা নানা রকম স্পেশাল ইফেক্ট, এমনকি নায়ক-নায়িকাদের দুর্দান্ত অভিনয়,

স্পেশাল ড্রেস এগুলি আমরা দেখতে পাই। কিন্তু এখন স্মার্টফোনের দৌলতে দুনিয়ায় এসে গেছে আমাদের হাতের মুঠোয়। স্মার্টফোনে বিভিন্ন অ্যাপ স্টোর থেকে ডাউনলোড করা যায় নানা রকম সোশ্যাল মিডিয়া অ্যাপ। এর মধ্যে উল্লেখযোগ্য হলো মোজ, টিকটক, স্নাপ ভিডিও প্রভৃতি।

এছাড়াও facebook-youtube ইনস্টাগ্রাম তো আছেই। বিশেষ করে ইনস্ট্রাগ্রামে জনপ্রিয়তা বর্তমানে প্রচুর। বড় বড় সেলিব্রিটির ইনস্টাগ্রাম কে নিজেদের ফটো ভিডিও পোস্ট করার জন্য সবথেকে বড় হাতিয়ার বানিয়ে নিয়েছেন। আসলে ইনস্টাগ্রাম যে কোন ফটো বা ভিডিও কে অত্যন্ত সুন্দরভাবে প্রদর্শিত করে সকলের সামনে,

তাই ইন্সটাগ্রামের জনপ্রিয়তা বর্তমানে বহুল। কিন্তু শুধু ডান্স বা সংগীতের ভিডিও নয়, মাঝে মাঝে ছোট ছোট বাচ্চাদের এমন কিছু অদ্ভুত প্রতিভার ভিডিও আমরা ভাইরাল হতে দেখি, যা দেখে সত্যিই আমাদের চক্ষু চড়কগাছ হয়ে যায়। এর আগে আমরা ভাইরাল হতে দেখেছিলাম,

দুটি ছোট্ট ছেলে মেয়ে প্রফেশনালদের মত স্টান্ট করে সোশ্যাল মিডিয়ায় কাঁপিয়ে দিয়েছিল। ঘটনাটি অবিশ্বাস্য হলেও ভিডিওটি দেখে আমরা সবাই অবাক হয়ে গেছিলাম। এত ছোট ছোট বাচ্চারা প্রফেশনালদের মত অ্যাকশন স্টান্ট কিভাবে শিখে ফেলল, সেটাই আশ্চর্য।

মুস্কান সেথিয়া সোশ্যাল মিডিয়ায় অত্যন্ত জনপ্রিয়। তিনি একজন সোশ্যাল মিডিয়া সেন্সেশন। সোশ্যাল মিডিয়ায় তার ভিডিওগুলি প্রায় সময়ই হয়-ভাইরাল। তার পারফরম্যান্স দর্শকরা অত্যন্ত পছন্দ করেন। বারবার তার পারফরম্যান্স দিয়ে তিনি দর্শকদের করেছেন মুগ্ধ।

বর্তমানে “কবির সিং” সিনেমাটি ভারতবর্ষে সুপারহিট হয়েছে। সিনেমাটিতে অভিনয় করেছেন শাহিদ কাপুর এবং কিয়ারা আদভানি। এই সিনেমার একটি গান “নয়ন নে বান্ড রাখিনে”, গানটি গেয়েছেন জনপ্রিয় গায়ক ও সুরকার আমল মল্লিক এবং শ্রেয়া ঘোষাল।

সম্প্রতি এই গানটিতে পারফর্ম করে ভাইরাল হলেন মুস্কান। নেভি ব্লু রঙের টপ ও স্কার্ট পরে পারফর্ম করে তিনি কাঁপিয়ে দিলেন সোশ্যাল মিডিয়া। এলোচুলে তার নাচ আগুন জ্বালিয়ে দিল দর্শকদের মনে। তার পারফরম্যান্স মুগ্ধ করে দিয়েছে দর্শকদের।

ভিডিওটি পোস্ট করা হয়েছে তার অফিসিয়াল ইউটিউব চ্যানেল থেকে। প্রায় হাজার হাজার মানুষ ভিডিওটি লাইক করেছে। তার প্রশংসায় পঞ্চমুখ সকলে। ভারতবাসী তার নাচে হয়ে গেছেন মুগ্ধ। এত কমবয়সী মুষ্কান জয় করে নিয়েছে সকলের মন।

সে যেনো তার জীবনে এভাবেই এগিয়ে যায়, এই আশাই করি আমরা। এই সব মেয়েরাই আমাদের অনুপ্রেরণা। এরা বারবার প্রমাণ করে দিয়েছেন সত্তিকারের প্রতিভা থাকলে কখনোই অশ্লীলতা বা স্পেশাল ইফেক্ট এর প্রয়োজন হয় না।

বিশেষ করে আজকালকার দিনে কিশোর কিশোরীরা নিজেদের বিখ্যাত করার জন্য নানা রকম অশ্লীল ভিডিও তৈরি করে সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হচ্ছে, কিছুদিন আগেই ভাইরাল একটি ভিডিওতে দেখা গিয়েছিল একটি মেয়ে একটি বুড়ো মানুষের গায়ে পা তুলে ভিডিও করে পোস্ট করেছে সোশ্যাল মিডিয়ায়,

যা ছিল অত্যন্ত কুরুচিকর। দর্শকরাই ভিডিও দিকে অত্যন্ত সমালোচনা ও নিন্দা করেছিলেন। উপযুক্ত প্রতিভাই মানুষের মন জয় করতে পারে, অশ্লীলতা নয়। সোশ্যাল মিডিয়ায় এইভাবেই বহু অনামী প্রতিভা আজ বিশ্বের সামনে প্রতিষ্ঠিত হয়েছেন।

দেশের কোনায় কোনায় এরকমই অনেক প্রতিভা আজও রয়েছেন বঞ্চিত, উপযুক্ত সুযোগের অভাবে তাদের অনেকেই আজও যোগ্য সম্মান অর্জন করতে পারেনি। যদিও সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমে আজ অনেকাংশই বিকশিত লাভ করেছে, সোশ্যাল মিডিয়া ও তার সাথে যুক্ত ব্যাক্তিদের জানাই আন্তরিক অভিনন্দন।