অসাধারণ এক্সপ্রেশনের সাথে তুমুল নেচে নেটদুনিয়ায় ভাইরাল যুবতী, ভিডিও ভাইরাল

বর্তমানে সোশ্যাল মিডিয়ার দৌলতে নানা রকম ভিডিও ভাইরাল হয় প্রতিদিন। সেখানে নাচ-গান প্রভৃতি অ্যাক্টিভিটির সাথে

মার্শাল আর্ট এছাড়াও নানা রকম অদ্ভুত ঘটনার ভিডিও ভাইরাল হতে দেখি আমরা। বর্তমানে সোশ্যাল মিডিয়ার দৌলতে

বহু মানুষ তাদের প্রতিভাকে বিশ্বের সামনে প্রদর্শন করতে পারছেন। দেশের কোনায় কোনায় এমন অনেক মানুষ রয়েছেন,

যাদের প্রতিভা থাকলেও নেই সুযোগ। তবে সোশ্যাল মিডিয়া এবং বিভিন্ন অ্যাপসের মাধ্যমে তারা নানারকমভাবে বিশ্বের সামনে

নিজেদের প্রতিভা প্রদর্শন করতে পারছেন। প্রতিভা প্রদর্শনের দৌড়ে কিশোর-কিশোরী যুবক-যুবতীদের সাথে বয়স্করাও পিছিয়ে নেই।

তবে বর্তমানে নানা রকম অ্যাপের মাধ্যমে আকর্ষণীয় ভিডিও পোস্ট করে ভাইরাল হয়ে যাচ্ছেন প্রায় প্রতিদিনই নানা মানুষ।

এই সমস্ত অ্যাপগুলি ব্যবহার করে মানুষ তার প্রতিভাকে করে তুলেছে আরো আকর্ষণীয়। সুন্দরভাবে পরিবেশিত ভিডিওগুলি দেখে

মন জুড়িয়ে যায় সকলের। যদিও উপযুক্ত প্রতিভা ছাড়া কোন অ্যাপের মাধ্যমে কিছু করা সম্ভব নয়, সবকিছুর জন্য চাই প্রতিভা।

আজকাল বিভিন্ন সেলিব্রিটিরাও লকডাউনে সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমে তাদের ভক্তদের সঙ্গে সংযোগ স্থাপনে সমর্থ হয়েছেন।

তারা ফেসবুক ইউটিউবসহ ইনস্টাগ্রাম সব জায়গাতে নিজের প্রতিভা প্রদর্শন করে দর্শকদের মন মাতিয়েছেন বারবার।

সম্প্রতি ভাইরাল একটি ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে, এক যুবতী মেয়ে লাল ও কমলা রঙের শর্ট টপ এবং টাইট জিন্স পড়ে বলিউড গানের মিউজিক ডান্স করছে।

মেয়েটির অসাধারণ রূপ দেখে মুগ্ধ হয়ে গেছে দর্শক। মেয়েটি ব্যাকগ্রাউন্ডে একটি মিউজিক চালিয়ে মিউজিকের তালে তালে নাচ করছে।

মিউজিকের তালে তালে সে একদম নিখুঁত ভাবে তার শরীরের বিভিন্ন অঙ্গ গুলি সঞ্চালন করছে। কোনরকম গান ছাড়া শুধু মিউজিকে

এইরকম পারফর্ম করা যথেষ্ট কঠিন, কিন্তু সামান্য সময়ের মধ্যে মেয়েটি তা করে দেখিয়েছে। মেয়েটির প্রতিভা মুগ্ধ করেছে সকলকে।

ভিডিওটি পোস্ট করা হয়েছে শেখ সফিউদ্দিন নামে একটি ফেসবুক প্রোফাইল থেকে। প্রায় 14 হাজারের মতো মানুষ ভিডিওটি লাইক করেছেন।

ফেসবুক ইনস্টাগ্রাম ইউটিউব সব জায়গায় ভাইরাল হয়ে গেছে ভিডিওটি। কমেন্ট বক্সে সবাই মেয়েটির অত্যন্ত প্রশংসা করেছেন।

মেয়েটি যেনো তার জীবনে এই ভাবেই তার জীবনে এগিয়ে যায় এই প্রার্থনাই করি আমরা। এইভাবে সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমে সারা পৃথিবী রয়েছে সচল।

করণা আ’-ত-‘ঙ্কে যেন পৃথিবীতে নেমে এসেছিল প্র’য়া’ণের নী’রব’তা, সেখানে এখনো পর্যন্ত সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমে মানুষ তার মনকে সচল রাখতে পেরেছিলেন।

এমনকি সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমে বাড়িতে বসেই সব কাজ করা সম্ভব হয়েছিল। সোশ্যাল মিডিয়াকে কু’র্নি’শ জানাই তার এই প্রচেষ্টার জন্য।