“আমি জিতবই, আরও ১৯৯ জনকে লাগবে”, ফালাকাটায় জানিয়ে দিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়

বুথে বুথে চলছিল নির্বা’চন। তারই মধ্যে বয়াল-২ এর ৭ নম্বর বুথের সামনে হুই’লচে’য়ারে বসেই তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়, একুশের নির্বাচনে নিজের জয় সম্পর্কে আ’শা’বাদী মন্তব্য করেছিলেন।

ফালাকাটার সভা থেকে শুক্রবার ২১ এর নির্বাচনে ক্ষ’মতায় আসা নিয়ে আরো একবার আশাব্যঞ্জক মন্তব্য করলেন তৃণমূল নেত্রী তথা রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তৃণমূলের আরও অন্তত ১৯৯ প্রার্থীকে জেতানোর জন্য আহ্বান জানালেন মানুষকে।

এবারে বিধানসভা নির্বাচনে হাইভোল্টেজ কেন্দ্র ছিল নন্দীগ্রাম। কারণ সেখানে মহারণে অবতীর্ণ ঘাসফুল শিবিরের প্রার্থী তথা খোদ মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় আর পদ্ম শিবিরের শুভেন্দু অধিকারী।

প্রথম থেকেই অবশ্য দুজনেই নিজেদের জয়লাভের সম্পর্কে ১০০% নিশ্চিত। ১ এপ্রিল, বৃহস্পতিবার দুপুরে ভোট চলাকালীন বয়াল ২-এর ৭ নম্বর বুথে যান মমতা। সেখান থেকে তিনি বেরিয়ে জানিয়ে দেন যে, জয়লাভ নিশ্চিত।

এবার মুখ্যমন্ত্রীর কন্ঠে একই মন্তব্য শোনা গেল উত্তরবঙ্গের ফালাকাটার সভা থেকে। একই সঙ্গে তৃণমূলের আরও ১৯৯ জন প্রার্থীকে জে’তাতে জোড়া ফুল চিহ্নে ভো’ট দেওয়ার আহ্বান জানালেন মমতা।

এদিন মুখ্যমন্ত্রী বিজেপি ও কে’ন্দ্রীয় বাহি’নীকে তু’লোধো’না করলেন। ফালাকাটাবাসীকে স’ত’র্ক করে তিনি বলেন, “গতকাল নন্দীগ্রামে দেখেছি কেন্দ্রীয় বা’হিনীর দা’প’ট। নির্বাচনের ৪৮ ঘণ্টা আগে প্রচার ব’ন্ধ হওয়ার পর কেন্দ্রীয় বাহিনী ভ”য় দেখাতে পারে। ওসবকে গুরুত্ব দেবেন না।”

এদিন বিজেপির বি’রু’দ্ধে টাকা দিয়ে ভো”ট কেনার অ’ভি’যোগ করলেন মুখ্যমন্ত্রী। তিনি বলেন, “লোকসভা ভোটে উত্তরবঙ্গে প্রচুর আসন পেয়েছিল। কিন্তু কোনও প্রতিশ্রুতি পালন করেনি। এবারও টাকা দিচ্ছে। অনেক প্রতিশ্রুতিও দিচ্ছে। কিন্তু আদতে কিছুই দেবে না।

তাই টাকা দিতে চাইলে আগে ১৫ লক্ষ টাকা চেয়ে নিন।” জনতার উদ্দেশ্যে মুখ্যমন্ত্রীর মন্তব্য, “এমন খেলা খেলুন, বিজেপিকে একেবারে মাঠের বাইরে বের করে দিন।”