বিশাল আকৃতির ভেড়াকে মাঝ আকাশে উড়িয়ে নিয়ে গেল ছোট্ট ঈগল পাখি, ঝড়ের গতিতে ভাইরাল ভিডিও

বর্তমানে পৃথিবীর খবর জানার জন্য একমাত্র মাধ্যম হলো সোশ্যাল মিডিয়া।পৃথিবীর নানা অদ্ভুত আশ্চর্য ঘটনাবলী আমরা সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমে দেখতে পারি ও জানতে পারি।

এমনকি সোশ্যাল মিডিয়াকে কাজে লাগিয়ে অনেক মানুষ তার সুপ্ত প্রতিভা কে বিশ্বের সামনে আনার সুযোগ পান। আমাদের দেশের

কোন কোন এমন অনেক প্রতিভা আছে যারা উপযুক্ত সুযোগের অভাবে সুপ্তই থেকে যান, কিন্তু আজকাল সোশ্যাল মিডিয়া সেই অসুবিধা দূর করেছে।

আজকাল সোশ্যাল কিশোর কিশোরী ও যুবক যুবতীদের প্রাধান্য বেশি। নাচ গান প্রভৃতি ভিডিওর সাথে সাথে নানারকম অদ্ভুত ঘটনাও ভাইরাল হতে দেখা যায়, যা দেখে আমরা সত্যিই অবাক হয়ে যাই।

পশুপাখিদের নিয়েও অনেক ভিডিও ভাইরাল হতে দেখা যায় সোশাল মিডিয়াতে। পশুপাখিদের সমাজে এমন অদ্ভুত অদ্ভুত কিছু কার্যকলাপ দেখা যায়, যা সত্যিই বিচিত্র।

এমনকি কিছু কিছু পশুপাখির মজাদার আচরণ আমাদের সত্যি হাসিয়ে দেয়, আবার কিছু কার্যকলাপ সত্যিই শিক্ষামূলক।

প্রতিটি পশুপাখির নিজস্ব অনুভূতি ও ভালোবাসা আছে,তারা মানুষের মতো তা হয়তো মুখে ব্যক্ত করতে পারে না, কিন্তু তাদের ভালোবাসা সত্যিই বিশ্বস্ত।

কিন্তু বর্তমানে মানুষের অত্যাচারে পশুপাখির বিভিন্ন প্রজাতি বিলুপ্ত হতে চলেছে। দিনের পর দিন বন কেটে ফেলা, পুকুর বুজিয়ে ফেলা,

প্রভৃতি কারণে বহু পশু পাখি আজ বিলুপ্ত প্রায়। কিন্তু তাও এমন কিছু মানুষ পৃথিবীতে আজও আছেন যারা সত্যিই পশু-পাখিকে সংরক্ষণের চেষ্টা করেন।

শিকারি পাখিদের মধ্যে সবথেকে দ্রুত এবং সাংঘাতিক পাখি হলো ঈগল। অনেক উচ্চতা থেকেও ঈগল শিকার এর উপর লক্ষ্য রাখতে পারে

এবং চোখের পলকে সে শিকার নিয়ে উড়ে যেতে পারে। এছাড়াও বাজপাখিও শিকারে কম যায় না। বড় বাজ ছোট ছোট ভেড়াকেও তুলে নিয়ে যেতে পারে।

এমনকি অনেকেই বাজপাখিকে শিকার করানোর ট্রেনিং দেয় এবং তার মাধ্যমে পশুপাখি শিকার করেন। ঈগলের অনেক প্রজাতি রয়েছে, যেমন গোল্ডেন ঈগল, ক্রাউন ঈগল প্রভৃতি।

সম্প্রতি ভাইরাল একটি ভিডিওতে শিকারি গল্প বাজপাখির নানা রকম প্রজাতি ও তাদের লোমহর্ষক শিকারের এর কিছু দৃশ্য তুলে ধরা হয়েছে।

ভিডিওর প্রথম দিকে দেখা যাচ্ছে, একটি বড় ক্রাউন ঈগল একদৃষ্টে গাছে বসা একটি ছোট্ট বাঁদরের বাচ্চার দিকে তাকিয়ে আছে।

স্থির দৃষ্টিতে শিকারের দিকে লক্ষ্য স্থির করার পর বিদ্যুতের মতো ছুটে যায় বাচ্চাটির দিকে। বাচ্চাটি প্রাণ ভয়ে পালাতে শুরু করলেও ঈগলের তীক্ষ্ণ দৃষ্টির সামনে এসে বাঁচতে পারে না,

চোখের পলক ঈগল তাকে তুলে নিয়ে যায়। গোল্ডেন ঈগল সবথেকে বৃহত্তম এবং তুখোড় শিকারি পাখি, ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে

একটি শিয়ালের বাচ্চা কে গোল্ডেন ঈগল তুলে নিয়ে যাবার চেষ্টা করে। ঈগলের বড় বড় নখের মাঝে তার মুখটি সজোরে চেপে যায়।

বাজপাখিরাও কিন্তু কম যায় না। ভিডিওর একটি অংশে দেখা যাচ্ছে, একটি বাজপাখি বাড়ির মধ্যে থাকা একটি গৃহস্থ পাখির বাসার দিকে একদৃষ্টে লক্ষ্য স্থির করে

এবং হঠাৎই বিদ্যুতের মতো উড়ে গিয়ে বাচ্চাটিকে তুলে নিয়ে যায়। শুধু তাই নয়, একটি লাল লেজওয়ালা বিশেষ প্রজাতির বাজপাখি একটি

কাঠবিড়ালি কে তাড়া করলে সে প্রাণের ভয় গাছের পর গাছ লাফিয়ে লাফিয়ে ছুটে পালানোর চেষ্টা করে। কিন্তু বাজ পাখির হাত থেকে রক্ষা পায় না।

বিদ্যুতের মতো বাচ্চাটিকে তুলে নিয়ে যায় বাজপাখি। এইরকমই ঈগল ও বাজপাখির নানারকম শিকারের ঘটনা দিয়ে তৈরি হয়েছে ভিডিওটি।

ভিডিওটি পোস্ট করা হয়েছে “এনিম্যাল চ্যানেল” নামে একটি অফিশিয়াল ইউটিউব চ্যানেল থেকে। প্রায় তিরিশ হাজার এর উপর মানুষ ভিডিওটি লাইক করেছে।

পশুপাখিদের এই খেলা মুগ্ধ করেছে দর্শককে। প্রকৃতিতে বন্যপ্রাণীরা এই ভাবেই একে অপরের সঙ্গে যুদ্ধ করেই বেঁচে থাকে, যা দেখে দর্শকরা হয়ে উঠেছেন ভাবুক।

দুই প্রাণীর এই বাস্তুতান্ত্রিক সম্পর্ক শিক্ষা দিয়েছে দর্শককে। সোশ্যাল মিডিয়ায় প্রায়ই এরকম নানা ধরনের ভিডিও ভাইরাল হয়।

সোশ্যাল মিডিয়া না থাকলে এইসব ঘটনাগুলির অস্তিত্ব আমরা কোনদিন জানতেই পারতাম না। এইসব ভিডিওগুলি থেকে আমরা বাস্তব জীবনে সত্যিই অনেক শিক্ষা পাই। সোশ্যাল মিডিয়াকে ধন্যবাদ জানাই তার কাজের জন্য।