নতুন রেস্তোরাঁ চলছে না, পুরনো দোকানে ফিরে এসে ইউটিউবারের কাছে ক্ষমাপ্রার্থী “বাবা মা ধাবা”র মালিক

গতবছর লকডাউনে দিল্লিতে ইউটিউবারের কারণে সংবাদের শিরোনামে এসেছিলেন “বাবা মা ধাবা” নামক এক রেস্টুরেন্টের মালিক কান্তা প্রসাদ। দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে আর্থিক সাহায্য পেয়েছিলেন ওই বৃদ্ধ।

দেশের বিভিন্ন প্রান্তের মানুষ ওই ব্যক্তির পাশে দাঁড়ালেও, সেই সুখ তার বেশি দিন সহ্য হলো না। পরবর্তীকালে ওই ব্যক্তি ইউটিউবার গৌরব ওয়াসনের বিরুদ্ধে টাকা তছরুপের অভিযোগ আনেন।

এবার গৌরবের কাছে ক্ষমা চাইলেন কান্তা প্রসাদ। একসময় তিনি গৌরব ওয়াসানের বিরুদ্ধে টাকা তছরুপ এবং খুনের হুমকি দেওয়ার অভিযোগ আনেন।

এবার সোশ্যাল মিডিয়ায় তারই একটি ভিডিও ভাইরাল হয়েছে। কান্তা প্রসাদকে গৌরবের কাছ থেকে ক্ষমা চাইতে দেখা গিয়েছে এই ভিডিওটিতে। নিজের কাজের জন্য তিনি সকলের কাছে ক্ষমাপ্রার্থী।

এদিন ভিডিওতে কান্তা প্রসাদ বলেন, “বৃদ্ধকে হাতজোড় করে বলতে শোনা যায়, “গৌরব ওয়াসন কোনও চুরি করেনি। ওই ছেলেটা চোর নয়। না আমি ওঁকে কোনওদিনও চোর বলেছি। আমাদের তরফ থেকে কেবল একটি ভুল হয়েছে। তাঁর জন্য আমরা ক্ষমাপ্রার্থী।

জনগনের কাছে আমাদের আরজি, কোনও ভুল করে থাকলে আমাদের ক্ষমা করে দেবেন।” সমাজকর্মী তুষান্ত অদলখার পরামর্শ ও সহযোগিতায় অনুদান নিয়ে একটি নতুন রেস্টুরেন্ট করেছিলেন কান্তা প্রসাদ। কিন্তু সেই দোকান চালাতে না পেরে পুরনো দোকানে ফিরতে হয়েছে তাকে।

এ প্রসঙ্গে কান্তা প্রসাদ জানিয়েছেন, “দোকানটা ভাড়া দিতাম মাসে ৩৫ হাজার টাকা। তিন কর্মচারীর বেতন মোট ৩৬ হাজার টাকা। ইলেকট্রিক আর জলের বিল ১৫ হাজার টাকা। আর তার উপর রান্নার জিনিস কেনার খরচ।

সব মিলিয়ে প্রায় ১ লক্ষ টাকা খরচ হত। কিন্তু লকডাউনের কারণে মাসে ৪০ হাজার টাকারও বিক্রি হত না। এর ফলে অনুদানের বেশিরভাগ টাকাই খরচ হয়ে গেছে”। তাই পুরনো দোকানে ফিরে ইউটিউবারের কাছে ক্ষমা চাইলেন কান্তা প্রসাদ।