“নেহরু তো ১৫ মিনিটেই বাই বাই বলে দিয়েছিলেন”, চীন ইস্যুতে রাহুলকে বিঁধলেন অমিত শাহ

কংগ্রেস সরকার ক্ষমতায় থাকলে ১৫ মিনিটের মধ্যে চিনা সেনাকে উৎখাত করে ফেরত পাঠিয়ে দিত। ভারতে চিনা অনুপ্রবেশের বিষয়টি নিয়ে কংগ্রেসের প্রাক্তন সভাপতি রাহুল গান্ধী এমনই এক মন্তব্য করেছিলেন। রাহুলের এহেন মন্তব্যের জবাব দিলেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ।

সর্বভারতীয় একটি সংবাদ মাধ্যমকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে অমিত শাহ বলেন,১৯৬২ সালে চিনের সঙ্গে যু’দ্ধে’র সময় যদি কংগ্রেস এমনটা করতে পারত, তাহলে ভারতীয় ভূখণ্ডের কয়েক হেক্টর জমি চিনের দখলে যেত না।

এদিন সাক্ষাৎকারে অমিত শাহ জানান,”ওরা যদি ওই ১৫ মিনিটের ফর্মুলা ১৯৬২ সালের যু’দ্ধে’র সময় প্রয়োগ করত, তাহলে ভারতীয় ভূখণ্ডের কয়েক হেক্টর জমি হারাতে হত না”। সাক্ষাৎকার দেওয়ার সময় তিনি জহরলাল নেহেরুর প্রসঙ্গ তুলে ধরেন।

অমিত বলেন,”সেই সময়ের প্রধানমন্ত্রী আকাশবাণীতে বলে দিয়েছিলেন, ‘বাই বাই অসম।’ আর এখন কংগ্রেস আমাদের এবিষয়ে শেখাতে আসছে? যখন আপনার প্রপিতামহ ক্ষমতায় ছিলেন, আমরা চিনা সরকারের কাছে ভূখণ্ড হারিয়েছিলাম”।

শুধু কংগ্রেসকে আ’ক্র’মণ করা নয়। পাশাপাশি তিনি সেনাবাহিনীর ১৬ বিহার রেজিমেন্টের প্রশংসায় পঞ্চমুখ হন। লাদাখের গালওয়ান উপত্যকায় চিন সৈ’ন্যে’র আগ্রাসন থেকে ভারতকে রক্ষা করেছেন তারা।

অমিত শাহ বলেন,”আমি অত্যন্ত গর্বিত ১৬ বিহার রেজিমেন্টের সে’নাদের জন্য। অন্তত আমাদের সময়ে আমরা নিজেদের মাটিতে দাঁড়িয়ে ল’ড়া’ই চালিয়ে গেছি। এই সে’নারা খারাপ আবহাওয়ার মধ্যেও আমাদের দেশকে রক্ষা করেছে।” কূটনৈতিক আলোচনার মধ্যে দিকে ভারত এবং চিনের মধ্যে যে উত্তেজনামূলক পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে তা নিরসন হবে বলে আশাবাদী অমিত শাহ।

৭ অক্টোবর হরিয়ানার জনসভায় বক্তৃতা দিতে গিয়ে প্রধানমন্ত্রীকে কাপুরুষ বলে উল্লেখ করেন রাহুল গান্ধী। তিনি বলেছিলেন,”আমাদের দেশের ভিতরে পা রাখার ক্ষমতা চিনের ছিল না।

আজ পৃথিবীতে এমন একটাই দেশ রয়েছে যার ভূখণ্ডে অন্য কোনও দেশের সেনা প্রবেশ করে ১২০০ বর্গকিলোমিটার দখল করে ফেলেছে। আর কাপুরুষ প্রধানমন্ত্রী বলছেন, দেশের জমি কেউ নেয়নি।” রাহুলের দাবি ছিল,”আমাদের সরকার থাকলে চিনা সে’নাকে উৎখাত করে দেশের বাইরে ফেলে দিত। ১৫ মিনিটও লাগত না”।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here