“বিনামূল্যে রেশন নাকি ভাষণ, কোনটা চান?”, জনগণের উদ্দেশ্যে প্রশ্ন অভিষেকের

শেষ পর্বের ভো’ট প্রচারে দক্ষিণ ২৪ পরগনার কুলতলিতে গিয়েছিলেন অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। দলীয় প্রার্থীর প্র’চারে গিয়েছিলেন তিনি।

যুব তৃণমূল সভাপতি তথা স্থানীয় তৃণমূল সাংসদ অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় বিজেপি আর তৃণমূলের নানা প্রকল্পের তুলনা করলেন।

একই সঙ্গে তাঁর বক্তব্য, বিজেপি ক্ষ’মতায় এলে বি’প’দ বা’ড়বে আর তৃণমূল ফের সরকার গঠন করলে আরও সুবিধা মিলবে।

এদিন অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন বলেন, “বিনামূল্যে ভা’ষণ দেয় বিজেপি আর বিনামূল্যে রেশন দেয় তৃণমূল সরকার। অতএব, ভো’ট দিয়ে কাকে আনবেন, তা ঠিক করে নিন নিজেরাই।”

তৃতীয় দফা অর্থাৎ আগামী ৬ তারিখ দক্ষিণ ২৪ পরগনা জেলার কুলতলিতে নির্বাচন। তাই শেষ পর্বের ভো’ট প্রচারে কার্যত উঠে পড়ে লেগেছেন ডায়মন্ড হারবারের সাংসদ অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়।

ভোট ঘোষণার শুরু থেকেই প্র’চার শুরু করেছেন অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। একাধিক জনসভা, রোড শো করে মানুষের মন জয় করে নিতে চেয়েছেন তিনি। এবার কুলতলির জনসভা থেকেও বিজেপি-তৃণমূলের তুলনা করে বিজেপি বি’রো’ধিতা করে ক’টা’ক্ষ করলেন অভিষেক।

গত ১০ বছরে রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় যে সকল উন্নয়ন করেছেন, সেই নিয়ে কেন্দ্রীয় সরকারের সঙ্গে প্রতিযো’গিতার চ্যা’লে’ঞ্জ ছুঁড়ে দিলেন অভিষেক।

কুলতলী থেকে শা’সক দলের প্রার্থী হয়েছেন গণেশচন্দ্র মণ্ডল। তাঁর সমর্থনে এদিন প্রচারে জন অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। তিনি বলেন, “মনে করুন, গণেশচন্দ্র মণ্ডলকে নয়, আপনারা ভোট দিচ্ছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে।”

দক্ষিণ ২৪ পরগনায় মোট ৩১ টি বিধানসভা আসন। এই জেলায় তৃণমূলের জন’প্রি’য়তা বেশি। বিজেপির অথবা এই অঞ্চলে পড়েনি। তাই আত্মবিশ্বাস একমাত্র হা’তি’য়ার তৃণমূলের। নির্বাচনী যু’-দ্ধে’র শেষে কে শেষ হাসি হাসে, সেটাই দেখার অপেক্ষায় আমজনতা।